দশদিক মাসিক

হোম ধর্ম ও জীবনকবীরা গুনাহ

কবীরা গুনাহ

কবীরা গুনাহ

‘‘কবীরা গুনাহ যা আল্লাহর কাছে মাফ না চাইলে কখনোই ক্ষমা পাওয়া যাবে না’’

কবীরা গুনাহ হচ্ছে যে সমস্ত কার্যকলাপকে আল্লাহ সুবাহানাহু ওয়াতায়ালা কুরআনে ও রাসুল (সা:) এর সুন্নাহতে নিষিদ্ধ করেছেন ও যা প্রথম প্রজন্মের মুসলিমদের কর্মের মাধমে সুস্পষ্ট হয়েছে। কবীরা গুনাহ্ নির্ধারনে স্কলারদের মধ্যে কিছুটা মত পার্থক্য আছে। কেউ কেউ “সাতটি জঘন্য কাজ থেকে বিরত থাক” এই হাদীসের উপর ভিত্তি করে বলেন কবীরা গুনাহ্ হচ্ছে শুধুমাত্র সাতটি। আল্লাহর সাথে শিরক করা, যাদু, অন্যায়ভাবে কাউকে হত্যা করা, এতিমের সম্পদ ভোগ করা, সুদ নেওয়া, যুদ্ধ ক্ষেত্র থেকে উপযুক্ত কারন ব্যতিত পলায়ন করা, এবং কোন সৎচরিত্রাবান নারীর বিরুদ্ধ অপবাদ দেওয়া (মুসলিম ও বুখারী)
আব্দুল্লাহ ইবনে আবাস বলেনঃ “সাত নয় বরং এর সংখ্যা ৭০ এর কাছাকাছি”

আমরা অনেক সময় না জেনেই কবীরাগুনাহ্ করে ফেলি।
নিচে কবীরা গুনাহ সমূহের তালিকাটি দেওয়াহলো


০১. আল্লাহর সাথে শিরক করা।
০২. কাউকে খুন করা।
০৩. যাদু করা।
০৪. নামাযে অবহেলা করা।
০৫. যাকাত না দেয়া।
০৬. ওযর ব্যতীত রমযানের রোযা না রাখা।
০৭. সামর্থ্য থাকা সত্ত্বেও হজ্জ্ব না করা।
০৮. পিতা মাতার অবাধ্য হওয়া।
০৯. আত্মীয়তার বন্ধন ছিন্ন করা।
১০. যিনা করা।
১১. সমকামিতা করা।
১২. সুদ দেয়া বা নেয়া।
১৩. এতিমের মাল ভক্ষণ।
১৪. আল্লাহ ও তাঁর রাসুলের প্রতি মিথ্যাচার।
১৫. জিহাদের ময়দান থেকে পলায়নকরা।
১৬. শাসক কর্তৃক জনগণকে অত্যাচার করা।
১৭. অহংকার করা।
১৮. মিথ্যা সাক্ষ্য দেয়া।
১৯. মদ পান করা।
২০. জুয়া খেলা।
২১. সতী নারীর উপর অপবাদ দেয়া।
২২. গনীমতের মাল আত্মসাত করা।
২৩. চুরি করা।
২৪. ডাকাতি করা।
২৫. রাহাজানি করা।
২৬. মিথ্যা শপথ করা।
২৭. যুলুম করা।
২৮. চাঁদাবাজি করা।
২৯. হারাম বস্তু ভক্ষণ করা।
৩০. আত্মহত্যা করা।
৩১. অধিকাংশ কথায় মিথ্যা বলা।
৩২. অন্যায় অবিচার করা।
৩৩. ঘুষ আদান প্রদান করা।
৩৪. নারী-পুরুষ একে অপরের বেশভূষা গ্রহণ করা।
৩৫. পরিবারবর্গের অশ্লীলতাকে প্রশ্রয় দেয়া।
৩৬. তালাকপ্রাপ্তকে হিলা করা।
৩৭. প্রশ্রাব থেকে পবিত্র না হওয়া।
৩৮. রিয়া, (লোক দেখানো ভালো কাজ করা)
৩৯. দুনিয়ার জন্য জ্ঞানার্জন করা,
৪০. আমানতের খিয়ানত করা।
৪১. খোটা দেয়া।
৪২. অন্যায়ভাবে কোন মুসলমানকে অভিশাপ দেয়া।
৪৩. ওয়াদা ভঙ্গ করা।
৪৪. গণকের কথায় বিশ্বাস করা।
৪৫. স্বামী-স্ত্রীর অধিকার খর্ব করা।
৪৬. ছবি অঙ্কন করা।
৪৭. বিদ্রোহ করা।
৪৮. অহংকার করা।
৪৯. উচ্চস্বরে বিলাপ করা।
৫০. দাস-দাসীর সাথে নিষ্ঠুর আচরণ করা।
৫১. জীব-জন্তুর সাথে নিষ্ঠুর আচরণ করা।
.৫২. মুসলমানকে উত্যক্ত করা।
৫৩. সৎ ও খোদাভীরুকে কষ্ট দেয়া।
৫৪. অহংকারবশত টাখনুর নিচে কাপড় পরিধান করা।
৫৫. পুরুষের জন্য স্বর্ণ ও রেশম ব্যবহার।
৫৬. মনিবের কাছ থেকে গোলামের পলায়ন।
৫৭. প্রতিবেশীকে কষ্ট দেয়া।
৫৮. আল্লাহ ছাড়া অন্য কারো নামে পশু জবাই করা,
৫৯. তর্ক-বিতর্কের মাধ্যমে সত্যের বিরোধিতা করা।
৬০. উদ্বৃত্ত পানি অন্যকে ব্যবহার করতে না দেয়া।
৬১. জেনেশুনে অন্যের সন্তান বলে পরিচয় দেয়া।
৬২. মাপে, ওজনে কম দেয়া।
৬৩. আল্লাহর আযাব সম্পর্কে উদাসীনতা প্রদর্শণ করা।
৬৪. আল্লাহর রহমত হতে নিরাশ হওয়া।
৬৫. বিনা ওযরে জামায়াত ত্যাগ করা।
৬৬. বিনা ওযরে জুময়া ত্যাগ করা।
৬৭. ওসিওতের মাধ্যমে কোন উত্তরাধিকারীকে বঞ্চিত করা।
৬৮. ধোকাবাজি ও প্রতারণা করা,
৬৯. মুসলমানদের গোপনীয় বিষয় ফাঁস করা এবং
৭০. সাহাবাদের কাউকে গালি দেয়া।


পাতাটি ৩৪৬২ বার প্রদর্শিত হয়েছে।