দশদিক মাসিক

হোম মানুষ বিষয়ক সিরিজি ছড়া(২৯তম সংখ্যা)

মানুষ বিষয়ক সিরিজি ছড়া(২৯তম সংখ্যা)

বদরুল বোরহান

৭৪.
কখনো মানুষ রোবট, পুতুল
কখনো ডাকাত-চোর,
কখনো মানুষ নিজ হাতে খোঁড়ে
নিজেই নিজের গোর।

কখনো মানুষ মহান, উদার
কখনো অধম, কীট,
কখনো মানুষ হৃদয় কাবার
দেয়ালের ভাঙে ইট।

কখনো মানুষ সাধক, পূজারি
ভন্ড-কপট-শট,
কখনো মানুষ ভুতুম দেবতা
সারমেয়, মর্কট।

৭৫.
মধ্যযুগের বর্বরতার সাক্ষী ইতিহাস,
এ ব্যাপারে সন্দিহানের নেই তো অবকাশ।
নিষ্ঠুরতায় মানুষ ছিল কঠোর-দয়াহীন,
অসভ্যতার জীর্ণতায় হয় সবকিছু বিলীন।
অন্ধকারের দৈন্যদশার করাল রাহুগ্রাস,
মানবতার কণ্ঠ চেপে ঘটায় সর্বনাশ।

চক্রাকারে কালের চাকা হয় যে আবর্তন,
ক্রমে মানুষ সভ্যতাকে করলো আলিঙ্গন।
সেজন্যে তো কিছু ত্যাগের হল আবশ্যক,
আবেগটাকে বলি দিতে হল নিরর্থক।

যান্ত্রিকতার যাঁতাকলে মানুষ আবেগহীন,
শঙ্কিত তাই, এ পৃথিবী কখন হবে লীন?
মন-মননের পাশ কাটিয়ে সংকীর্ণতার ঘোর
কাটবে কখন? এবং কবে দেখবো আলোর ভোর?

৭৬.
মরলে মানুষ কেউবা পোড়ায়
কেউা কবর দেয়,
মরলে মানুষ তারপরে আর
কেউ কি খবর নেয়?

নেয়না তো কেউ খবর এবং
কান্দে না আর মন,
দু’দিন পরেই সব ভুলে যায়
কেমন আপনজন?

ব্যস্ত সবাই কর্মে যে যার
ভাবার সময় নাই,
জীবন মানেই এগিয়ে চলার
মূলমন্ত্রটা পাই।

বাস্তবতার এটাই নিয়ম
নিয়তির এক খেল,
এ জায়গাতেই সকল মানুষ
সকল সময় ফেল।

৭৭.
গরীবের পাশে কেউ তো থাকে না
গরীবের কেউ নেই,
জীবনের পথে খাবি খায় আর
হারায় কেবল খেই।

গরীব মাথায় কাঁঠাল ভেঙেই
গোঁফে দেয় যারা তেল,
সময় হয়েছে তাদের মাথায়
ভাঙো সব নারিকেল।

পাতাটি ৩৫৪৮ বার প্রদর্শিত হয়েছে।